প্রাণায়ামের সাধারণ নিয়মাবলি - whatsappstatus99

LATEST

Friday, August 30, 2019

প্রাণায়ামের সাধারণ নিয়মাবলি

 প্রাণায়াম 

pranayama

   প্রাণায়াম কথাটির অর্থ কি?  

একাত্তরের জীবনযাত্রার কথা হল শ্বাস বৃদ্ধি।
প্রাণ + আয়াম = প্রাণায়াম।   
এই প্রাণায়ামের শুভ বায়ো পদক্ষেপ গ্রহণ করা এবং কোনও দেবদেবীর রাখা উচিত রাখা আমাদের ফলাফল পরীক্ষা অক্সিজেনের সুযোগ হয় না।   
   আর এই অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত ​​আমাদের দেহ পরীক্ষা করা সুস্থ এবং সব।  এই প্রাণনাশের দিকগুলি শারীরিক ও মানিক সংযোগকারী বিকাশ ঘটেছে ায়  প্রাণবন্ত প্রক্রিয়া যে শ্বাসপ্রশ্বাস গ্রহণ করা হয় তিনবার ভাগ হয়ে যায়। ১) রেচক, ২) কুম্ভক, ৩) পূরক।   
  ১)  রেচক - শ্বাসকে বাইরে বের করে দেওয়াকে বলে।
  ২) কুম্ভক -  শ্বাসকে ভিতরে আটকে রাখা।
  ৩)  পূরক - শ্বাসকে গ্রহণ কর প্রাপক।

     কিভাবে প্রাণায়াম করবেন। 

     প্রাণায়াম বিধান পালনের জন্য নিয়মিত অবস্থা যা চালানো হয় হয়  যে গুলো হল 

     ১) অভ্যাস, ২) সময়, ৩) স্থান, ৪) প্রস্তুতি, ৫) পাশাক,   ৬) বায়ু, ৭) আহার। 
     ১) অভ্যাস - যা সব আসন স্থির এবং কোনভাবে বিবেচনা করা উচিত না সব  যেমন প্যারসন, ব্লজহাসন ইত্যাদি।  এই পাস এবং বৌকে মনোযোগ দিন  শাবস্ ধীর ধৈর্যশীল হন এবং বার্জন হন তাই  
    ২) সময় - একবার শান্ত পরিবেশে প্রাণহায়ার প্রচার করা উচিত।  আর সেইজন্যই সূর্যদ্বয়ের পূর্বে এবং সন্নিবেশ জীবন সূর্যহরের পরের জীবন মারা যায়।  এই সময়ে পর্যবেক্ষণের স্থান এবং বিশ্লেষণ। 
     ৩) স্থান - ঝিলমেলা এবং বোয়া - ও ধুলিহীন অবস্থান প্রাণায়াম হতে হবে।  এই অজানা মনি - কাষিরা নির্ণয় এই ক্রিয়া রাত হস্তি।  আলোচনার বা গুমাটে জুনে প্রাণায়াম করা অনউচিত ।
    ৪) প্রস্তুতি -  শৌচ কর্মী সেরে কিছুটা আগে জীবনযাপন করা হয়নি।  আবার দুপুরের খাবারের পরে পোষা খালি মারা যাবেনা।
     ৫) পাশাক - ঢিলে - ঢালা  পরিষ্কার পোশাক ব্যবহার করাই প্রাণায়ামের রীতি।
     ৬) বায়ু -  প্রাণায়াম ‌ সময় প্রিয়াজন নির্মল বায়ুর।  এতক্ষণের সময় ধরে রাখা হয়েছে।  কারণ ঐ সময় বায়ু নির্ধারিত। 
     ৭) আহার -  প্রাণায়াম অভ্যস্ত হতে হলে মাছ - মাংস মদ বার্জন করাই ভালা।  মাংসস, ও মদ পারলেন না  তাঁর শখ, সবজী, দুধ, ঘি খাওয়া কিছু নেই  প্রাণায়ামে স্বাত্তিক মরসুমে একত্রিত হয়ে পড়া  কারণ তাদের স্বতন্ত্র নমুনা এবং বিরক্তিকর অবস্থান।  সত্য সময়ে  তারা স্বাচ্ছন্ন মিতেরী হয়।  তাঁর অহিংসা, সত্য, আস্তে, ব্র্ম্মচক্র, অপরিগ্রহ হওয়া বিশ্বাসী হবে।  আর শৌচ, পৃথিবী, তপ, স্বাদায়, ঈভ্রষ্ট বিশ্বাস  এই পাঁচটি নিয়ম করতে হবে।  

    No comments:

    Post a Comment